পথশিশুদের নিয়ে পূজার গান

3 weeks ago
8:56 pm
9
বিনোদন পথশিশুদের নিয়ে পূজার গান

লক্ষণীয় বিষয়, মহামারি এড়িয়ে দুর্গা পূজা উৎসবকে ঘিরে এবার বেশ ক’টি বিশেষ গানচিত্র তৈরি হচ্ছে।

তার মধ্যে আলাদা আবহ নিয়ে হাজির হচ্ছেন অভিনেত্রী-পাপেট শিল্পী কাজী নওশাবা আহমেদ। টানা এক বছর পর তিনি আবারও কাজ করলেন মিউজিক ভিডিওতে। এবার আর একা নন, সঙ্গে নিয়েছেন ১৫ জন পথশিশু। আরও আছেন রেবেকা, অমিত সিনহা ও আলিফ। তাদের সবাইকে নিয়ে বার্তানির্ভর গানচিত্রটি নির্মাণ করেছেন সৌমিত্র ঘোষ ইমন।

তার আগে গানের তথ্যগুলো জানা যাক। নাম ‘এসেছে দুর্গা মা’। এটি তৈরি করেছেন লন্ডন প্রবাসী সংগীত দম্পতি রাজা কাশ্যাফ (সুর-সংগীত) ও রুবাইয়াত জাহান (কথা-কণ্ঠ)।

দুর্গা পূজা উৎসবকে ঘিরে তৈরি বিশেষ এই গানটির ভিডিও শুটিং হয়েছে সম্প্রতি রমনা কালীমন্দির ও আশপাশের এলাকায়।

কাজটি করে বেশ তৃপ্ত কাজী নওশাবা আহমেদ। অন্যতম কারণ, এতে শুধু নাচ-গানই নেই, রয়েছে বিশেষ বার্তা।

নওশাবা বলেন, ‘বছরখানেক পর ক্যামেরার সামনে গেলাম। ফলে অনেক হিসাব-নিকাশ ছিল কাজটি করার আগে। আমি চাইনি, অন্য আট-দশটা উৎসবের গানে মডেল বা নৃত্যশিল্পী হিসেবে নিজেকে দাঁড় করাতে। তাই নির্মাতা সৌমিত্র ঘোষ ইমন ভাই এবং গানটির শিল্পী রুবাইয়াত আপুর সঙ্গে আমার বিশদ আলাপ হয়। আমি আমার কিছু পরিকল্পনার কথা বলি। উনারা খুব আগ্রহ নিয়ে গ্রহণ করেন। এবং আমিও আনন্দ নিয়ে কাজটি করি।’

নওশাবা, ইমন ও রুবাইয়াতের আলাপের সূত্র ধরেই গানচিত্রটির গল্পে যুক্ত হয় হাইকোর্ট মাজারের ১৫ জন পথশিশু। যাদের সঙ্গে আগেই পরিচয় ছিল কাজী নওশাবার।

এই শিশুদের যুক্ত করা প্রসঙ্গে নওশাবা বলেন, ‘প্রথমত আমি চেয়েছি মণ্ডপে গিয়ে শুধু নাচ-গান না করে সবার জন্য একটা বার্তা দিতে। যে বার্তায় থাকবে ধর্ম-বর্ণ উঁচু-নিচু সব জাতের সম্প্রীতির বন্ধন। ধর্ম যার যার, উৎসব হোক সবার। সেই ভাবনা থেকেই এই শিশুদের নেওয়া। এমনকি এখানে মায়ের চরিত্রে রেবেকা আন্টিকেও নেওয়া হয়েছে বার্তার আশায়। কারণ, দুর্গা তো সকল মা-বোনের মধ্যেই বিরাজমান হওয়ার কথা। সব মিলিয়ে কাজটা খুব ভালো হয়েছে। বাচ্চাগুলো শুটিংয়ের নামে দিনভর আনন্দে ছিল। নতুন জামা পেয়েছে। শুটিং করেছে। ওদের সুন্দর একটা দিন উপহার দিতে পেরে শান্তি লাগছে আমার।’

ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের ব্যানারে বিশেষ এই গানটি শিগগিরই একসঙ্গে উন্মুক্ত হচ্ছে ভারত ও বাংলাদেশ থেকে। নিজের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন টুগেদার উই ক্যান-এর নানামাত্রিক ইভেন্ট নিয়ে গেলো এক বছর টানা ব্যস্ত সময় পার করছেন কাজী নওশাবা আহমেদ। কিন্তু অভিনয়ে প্রায় অনুপস্থিত তিনি। এদিকে ধর্ষণ ইস্যুতে গোটা দেশ উত্তাল হলেও বরাবর সামাজিক আন্দোলনে লেপটে থাকা নওশাবার অবস্থান এবার বেশ চুপচাপ! কেন?

জবাবে নওশাবা বললেন তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা। তার ভাষ্য, ‘আমি খুব ছোট আর অজনপ্রিয় একজন অভিনয়শিল্পী। সেটা আমি জানি। তবু গেলো এক বছরে আমার কাছে সাতটি নাটকের চিত্রনাট্য এসেছে। এটা সুখবর বটে। জানি না কথাটি শুনলে অবাক হবেন কিনা, সাতটিতেই আমার চরিত্র ধর্ষণ হওয়া নারীর চরিত্র! যেখানে আসলে ধর্ষণ দৃশ্যে আমাকে সরাসরি অভিনয় করতে হবে অন ক্যামেরা! আমি অনেককে বোঝানোর চেষ্টা করেছি, এটা যদি ধর্ষণবিরোধী নাটক হয়, তাহলে দৃশ্যটা দেখানো জরুরি হবে কেন? না দেখিয়েও তো কাজটা করা যায়। কিন্তু বোঝাতে ব্যর্থ হয়েছি। এবং একটি কাজও আমার করা হয়নি। ধর্ষণকে পুঁজি করা কোনও ধর্ষণবিরোধী কাজ করতে চাই না।’

আরও বলেন, ‘দেখুন ন্যায্য দাবি নিয়ে গড়ে ওঠা আন্দোলনের সঙ্গে বরাবরই আমি ছিলাম। গণজাগরণ থেকে শুরু করে প্রায় সবক’টিতে। এবার আর মাঠে নেই। ঢের অভিজ্ঞতা হয়েছে। বরং গান, নাটক, পাপেটের মাধ্যমে যদি কিছু বার্তা দিতে পারি, সেটাই হবে বড় কাজ। পূজার গানটি তারই প্রতিচ্ছবি হবে।’