নাটোরের চলনবিলে চার পাখি শিকারীর দন্ড, ৬০টি পাখি অবমুক্ত

3 weeks ago
6:21 pm
15
অন্যান্য পরিবেশ ও কৃষি নাটোরের চলনবিলে চার পাখি শিকারীর দন্ড, ৬০টি পাখি অবমুক্ত

নাটোরের সিংড়া অধ্যুষিত চলনবিলে ফাঁদ পেতে পাখি শিকারের অপরাধে চার শিকারীকে বিভিন্ন মেয়াদে দন্ডাদেশ ও অর্থদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় ৬০টি দেশীয় পাখি অবমুক্ত করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে সিংড়া উপজেলা প্রশাসন ও চলনবিল জীববৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সদস্যরা যৌথভাবে এই অভিযান চালায়। দান্ডাদেশ প্রাপ্তরা হলো, নাটোরের বড়াইগ্রামের লক্ষীপুর গ্রামের ফেলু প্রামাণিকের ছেলে শমসের আলী (৩৫), গুরুদাসপুরের নওপাড়া গ্রামের খয়ের উদ্দিনের ছেলে আব্দুল জোব্বার (৩৪), সিংড়া উপজেলার পাকুরিয়াপাড়া গ্রামের নাজির উদ্দিনের সাইফুল ইসলাম (৩৬) এবং একই গ্রামের মৃত ইয়াছিন আলীর ছেলে ইয়াকুব আলী (৩৫)।

সিংড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন বানু জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিলের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে চার পাখি শিকারীকে আটক করা হয়। এসময় শিকারীদের কাছ থেকে বক, রাতচড়াসহ বিভিন্ন প্রজাতির ৬০টি দেশীয় পাখি এবং পাখি ধরার ফাঁদ উদ্ধার করা হয়। এসময় ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে পাখি শিকারী শমসের আলী ও আব্দুর জোব্বারকে বিশ দিন করে চল্লিশ দিন বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং সাইফুল ইসলাম এবং ইয়াকুব আলীকে দশ হাজার টাকা করে বিশ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করা হয়। পরে পাখিগুলোকে মুক্ত আকাশে উড়িয়ে দেয়া হয়। সেই সাথে পাখি শিকারের ফাঁদ পুড়িয়ে ফেলা হয়। পাখি শিকারীদের ধরতে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা উল্লেখযোগ্য ভুমিকা পালন করছে বলে জানান তিনি।

চলনবিল জীববৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম জানান, পানি কমতে থাকায় চলনবিলে মাছ খেতে ঝাঁকে ঝাঁকে বিভিন্ন প্রজাতির পাখি আসতে শুরু করেছে। আর এই সুযোগে প্রশাসনের নজর এড়িয়ে পাখি শিকারীরা তাদের তৎপরতা বাড়িয়ে দিয়েছে। স্বেচ্ছাসেবামুলক সামাজিক সংগঠনের মাধ্যমে তারা চলনবিলের পাখি ও জীববৈচিত্র্য রক্ষায় নিয়মিত কাজ করছেন বলে জানান তিনি।

অভিযানে চলনবিল জীববৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক আখতারুজ্জামান, কলম প্রকৃতি ও পরিবেশ রক্ষা কমিটির সভাপতি হারুন অর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন, পরিবেশ কর্মী সজীব ইসলাম জুয়েল, আব্দুর রশিদসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।