কটিয়াদীতে পীরের নামে মাজার করতে লাশ চুরি করল ভক্ত; অত:পর…!

4 weeks ago
5:27 pm
98
অন্যান্য বিশেষ প্রতিবেদন কটিয়াদীতে পীরের নামে মাজার করতে লাশ চুরি করল ভক্ত; অত:পর…!

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে মৃত্যুর নয় মাস পর কবর থেকে নূরুল ইসলাম নামের এক পীরের লাশ চুরি ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার মসূয়া ইউনিয়নের পূর্ব মসূয়া চারালদিয়া গ্রামে এই চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটে। নূরুল ইসলাম মরহুম ইমাম হোসেনের পুত্র। তিনি গত ১০ শে মার্চ মৃত্যুবরণ করেন।

ঘটনাটি ঘটিয়েছে পাকুন্দিয়া বেলদি গ্রামের মোখছেদ মিয়া (৫৫), বেজুরদিয়া গ্রামের সিএনজি চালক লিটন (৩৫) ও বেলদি গ্রামের কামরুল (৩৫)।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্র জানায়, মসূয়া এলাকায় নূরুল ইসলাম (পীর) হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তার মৃত্যুর পরবর্তী সময়ে মৃত লাশ দিয়ে পীরের মুরিদগন মাজার নির্মাণ করতে চায়। কিন্তু এলাকার জনসাধারণ মাজার নির্মাণ প্রস্তাবে অসম্মতি জানায়।

এদিকে মৃত্যুর নয় মাস পর বৃহস্পতিবার ভোরে পাশ্ববর্তী পাকুন্দিয়া উপজেলার বেলদি গ্রামের মোখছেদ, বেজুরদিয়া গ্রামের সিএনজি চালক লিটন ও বেলদি গ্রামের কামরুল কথিত নূরুল ইসলাম পীরের লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে। এসময় লাশটি সিএনজি করে নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা তাদেরকে আটক করে পুলিশকে সংবাদ দেয়।

সংবাদ পেয়ে কটিয়াদী মডেল থানার এসআই মনিরুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে স্থানীয় ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতে তাদেরকে মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। পরবর্তীতে লাশটিকে পীরের পূর্বের কবরে দাফন করা হয়।

আটককৃত মোখছেদ মিয়ার স্বীকারোক্তিতে বলেন, ‘মৃত নূরুল ইসলামের স্ত্রী পারুল বেগম, তার কন্যা শামসুন্নাহার ও তার স্বামী ফারুক মিয়া নির্দেশে তার সহযোগীরা পীর নূরুল ইসলামের লাশ কবর থেকে উত্তোলন করেন বলেন জানান তিনি।’

কটিয়াদী মডেল থানার এসআই মনিরুজ্জামান বলেন, ‘স্থানীয় ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে আটককৃত মোখছেদকে মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। পরে লাশটিকে পূর্বের কবরে দাফন করা হয় বলে নিশ্চিত করেন তিনি।’