কটিয়াদীতে কুড়িয়ে পাওয়া ৫৩ হাজার টাকা ফেরত দিলেন ব্যাংকের সিকিউরিটি!

2 weeks ago
3:39 pm
487
অন্যান্য বিশেষ প্রতিবেদন কটিয়াদীতে কুড়িয়ে পাওয়া ৫৩ হাজার টাকা ফেরত দিলেন ব্যাংকের সিকিউরিটি!

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী ইসলামী ব্যাংক থেকে কুড়িয়ে পাওয়া ৫৩ হাজার টাকা তার মালিককে ফেরত দিয়েছেন ইসলামী ব্যাংক কটিয়াদী শাখার দায়িত্ব পালনকারী সিকিউরিটি গার্ড নূরুল্লাহ।

সোমবার দুপুরে প্রকৃত মালিক অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মতিউর রহমান (৬৪)কে টাকাগুলো ফেরত দেওয়া হয়। তিনি কুলিয়ারচর উপজেলার গোবরিয়া আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ গোবরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে অবসর গ্রহণ করেন।

জানা গেছে, সোমবার সকালে কটিয়াদী পোস্ট অফিস থেকে ৫৩ হাজার টাকা উত্তোলন করেন লোহাজুরী ইউনিয়নের দক্ষিণ লোহাজুরী গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মতিউর রহমান। টাকা উত্তোলন শেষে ইসলামী ব্যাংক কটিয়াদী শাখা থেকেও ১৩ হাজার টাকা উত্তোলন করে। একপর্যায়ে ৬৬ হাজার টাকা এক সাথে হিসাব করতে গিয়ে ৫৩ হাজার টাকা হারিয়ে ফেলেন। তাৎক্ষণিক বিষয়টি ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলে তারা পুলিশকে জানানোর পরামর্শ দেন।

পরবর্তীতে পুলিশ সংবাদ পেয়ে কটিয়াদী পোস্ট অফিস ও ইসলামী ব্যাংক পরিদর্শন করে টাকা হারানোর সত্যতা খুজে পান। পরে কটিয়াদী মডেল থানার এএসআই মোবারক হোসেন ও কনস্টেবল হৃদয়ের তাৎক্ষণিক তৎপরতায় ও ব্যাংক কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় কুড়িয়ে পাওয়া টাকা মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

সিকিউরিটি গার্ড নুরুল্লাহ জানান , ‘সোমবার দুপুরে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডে দায়িত্ব পালনকালে টেবিলে ওপর কিছু টাকা পড়ে থাকতে দেখেন। পরে টেবিলে ওপর পড়ে থাকা টাকা গুনে দেখেন ৫৩ হাজার টাকা। তিনি তাৎক্ষণিক কুড়িয়ে পাওয়া টাকার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে অবহিত করেন।’

পরে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে কুড়িয়ে পাওয়া টাকার সঙ্গে ওই ব্যক্তির টাকার বর্ণনার মিল থাকায় টাকার প্রকৃত মালিক মতিউর রহমানকে ওই টাকা বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

হারানো টাকা ফেরত পেয়ে মতিউর রহমান বলেন, ‘বর্তমান সময়ে মোবারক ও নুরুল্লাহ’র মতো লোকের বেশ অভাব রয়েছে। তারা সততার এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। মতিউর তাদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।’

কটিয়াদী মডেল থানার এএসআই মোবারক হোসেন জানান, ‘মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের প্রচেষ্টায় মতিউর রহমানের টাকা উদ্বার করা হয়। পরে সকল উপস্থিতিতে টাকা বুঝিয়ে দেয়া হয়। এমন একটি মানবিক কাজে অংশীদার হতে পেরে নিজেকে গর্ববোধ করছি বলে জানান তিনি।’

কটিয়াদী ইসলামী ব্যাংকের এভিপি ও শাখা প্রধান খন্দকার আমিরুল ইসলাম বলেন, ‘সিকিউরিটি নুরুল্লাহ সততার পরিচয় দিয়েছেন। পাশাপাশি কটিয়াদী মডেল থানার এএসআই মোবারক ও তার সহযোগী হৃদয়ের তৎপরতায় টাকা ফেরতে সহযোগিতা করায় তাদেরকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।’